মেনু নির্বাচন করুন
□ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর

 

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা। 

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

অধিদপ্তরের নাগরিক সেবা সনদঃ

        

সেবার নাম

সেবা গ্রহীতা

সেবা প্রাপ্তির সময়সীমা

সেবাদানকারী কর্তৃপক্ষ

মাঠ পর্যায়ের সকল ধরনের আইসিটি সমস্যার সমাধানে সহায়তা প্রদান।

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উপকারভোগী জনগন।

সর্বোচ্চ দুই দিন।

প্রধান কার্যালয়, জেলা কার্যালয় ও উপজেলা কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাগণ।

আইসিটি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ ও কর্মসূচি সম্পর্কে পরামর্শ প্রদান।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রশিক্ষন সমন্বয়কারী।

কল সেন্টারের মাধ্যমে নাগরিক সেবা প্রদান।

সকল জনগন

তাৎক্ষনিক

কল সেন্টার

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য স্থানে স্থাপিত কম্পিউটার ও ভাষা শিক্ষা ল্যাব হতে সেবা গ্রহণ, অভিযোগ ও পরামর্শ সম্পর্কিত।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান, সমন্বয়ক ও কল সেন্টার

হালনাগাদ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জনসাধারণকে সরকারি তথ্য প্রাপ্তিতে সেবা প্রদান। এ সম্পর্কিত যে কোন অভিযোগ ও পরামর্শ।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

ওয়েব সাইটে উল্লখিত কর্মকর্তা

সরকারি ও আধা-সরকারি পর্যায়ে আইসিটি কারিগরি সহায়তা প্রদান।

সকল সরকারি ও আধা-সরকারি প্রতিষ্ঠান।

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারেগুলোকে সহায়তা প্রদান।

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা

সর্বোচ্চ দুই দিন

মাঠ পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ ও কল সেন্টার

সরকারি অফিস সমূহে বিভিন্ন অনলাইন ই-পদ্ধতি চালুকরণে সহায়তা প্রদান।

সরকারি প্রতিষ্ঠান

সর্বোচ্চ দুই দিন

সকল পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ

জাতীয় ব্যাকবোন নেটওয়ার্কের সাথে সার্বক্ষনিক সংযুক্ত রাখা।

নেটওয়ার্কে সংযুক্ত সকল সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

সর্বোচ্চ দুই দিন

সকল পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ

অধিদপ্তরের নাগরিক সেবা সনদঃ

        

সেবার নাম

সেবা গ্রহীতা

সেবা প্রাপ্তির সময়সীমা

সেবাদানকারী কর্তৃপক্ষ

মাঠ পর্যায়ের সকল ধরনের আইসিটি সমস্যার সমাধানে সহায়তা প্রদান।

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উপকারভোগী জনগন।

সর্বোচ্চ দুই দিন।

প্রধান কার্যালয়, জেলা কার্যালয় ও উপজেলা কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাগণ।

আইসিটি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ ও কর্মসূচি সম্পর্কে পরামর্শ প্রদান।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রশিক্ষন সমন্বয়কারী।

কল সেন্টারের মাধ্যমে নাগরিক সেবা প্রদান।

সকল জনগন

তাৎক্ষনিক

কল সেন্টার

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য স্থানে স্থাপিত কম্পিউটার ও ভাষা শিক্ষা ল্যাব হতে সেবা গ্রহণ, অভিযোগ ও পরামর্শ সম্পর্কিত।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান, সমন্বয়ক ও কল সেন্টার

হালনাগাদ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জনসাধারণকে সরকারি তথ্য প্রাপ্তিতে সেবা প্রদান। এ সম্পর্কিত যে কোন অভিযোগ ও পরামর্শ।

সকল জনগন

সর্বোচ্চ দুই দিন

ওয়েব সাইটে উল্লখিত কর্মকর্তা

সরকারি ও আধা-সরকারি পর্যায়ে আইসিটি কারিগরি সহায়তা প্রদান।

সকল সরকারি ও আধা-সরকারি প্রতিষ্ঠান।

সর্বোচ্চ দুই দিন

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারেগুলোকে সহায়তা প্রদান।

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা

সর্বোচ্চ দুই দিন

মাঠ পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ ও কল সেন্টার

সরকারি অফিস সমূহে বিভিন্ন অনলাইন ই-পদ্ধতি চালুকরণে সহায়তা প্রদান।

সরকারি প্রতিষ্ঠান

সর্বোচ্চ দুই দিন

সকল পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ

জাতীয় ব্যাকবোন নেটওয়ার্কের সাথে সার্বক্ষনিক সংযুক্ত রাখা।

নেটওয়ার্কে সংযুক্ত সকল সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

সর্বোচ্চ দুই দিন

সকল পর্যায়ের অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ

ছবি নাম মোবাইল

ছবি নাম মোবাইল

ছবি নাম মোবাইল

সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন

“সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন” প্রকল্প     

    স্পন্সরঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়।

    বাস্তবায়নেঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর।   

    মেয়দকালঃ জানুয়ারী ২০১৫ হতে ডিসেম্বর ২০১৬।

    সর্বোমোট বরাদ্দঃ ২৯৮.৯৮ কোটি টাকা।

    অনুমোদনের তারিখঃ ২৩/১২/২০১৪ খ্রিঃ.

জনবলঃ                           

প্রকল্প পরিচালক

১ জন

সহকারী-প্রকল্প পরিচালক

১ জন

সহকারী প্রোগ্রামার

২ জন

সহকারী মেইনটেনেন্স ইঞ্জিনিয়ার

২ জন

কম্পিউটার অপারেটর

১ জন

হিসাবরক্ষক

১ জন

এম.এল.এস.এস   (আউট সোর্সিং এর মাধ্যমে)

২ জন

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যঃ

  • কম্পিউটার শিক্ষা সম্প্রসারণ, কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, কর্মদক্ষতা এবং ভাষাগত দক্ষতা ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে দেশের সকল জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিশেষায়িত কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা।
  • স্থানীয় সাইবার কেন্দ্র স্থাপনে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট সংযোগ প্রদান করা।  
  • এসএসসি ও এইচএসসি স্তরে মাল্টিমিডিয়া ব্যবহার করে শিক্ষাকে  উৎসাহী ও অনুপ্রাণিত করতে কম্পিউটার ব্যবহারে  state-of-the-art সুবিধা প্রদান করা।
  • ভাষা নির্ভরফ্রিল্যান্সিং, আউটসোর্সিং এবং অন্যান্য কর্মদক্ষতাকে ত্বরান্বিত করতে ল্যাব স্থাপন করে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর ভাষা শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা।    

কার্যক্রমঃ

  • সারাদেশের প্রতিটি জেলার ২,০০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন।
  • প্রতিটি জেলার ১টি করে মোট ৬৪টি উপজেলায় ভাষা প্রশিক্ষণ সফ্‌টওয়্যার সরবরাহ করে ভাষা প্রশিক্ষণের সুযোগ সৃষ্টি করা।
  • ১,০০০ জন শিক্ষককে ০৯টি ভাষার (ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, স্প্যানিশ, জার্মান, জাপানীজ, কোরিয়ান, রাশিয়ান, আরবী ও চাইনিজ) প্রশিক্ষক হিসেবে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা।
  • প্রতিটি ল্যাবে ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি চালু করা।

ফলাফল/অগ্রগতি:        

  • এর ফলে এসএসসি ও এইচএসসি পর্যায়ে আইসিটি শিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধি পাবে এবং স্থাপিত ২০০০টি সুসজ্জিত ও উচ্চগতি সম্পন্ন ইন্টারনেট সুবিধাসম্পন্ন অত্যাধুনিক কম্পিউটার ও ভাষা শিক্ষা ল্যাবগুলো আইসিটি অবকাঠামো হিসেবে বিবেচিত হবে।
  • তৃণমূল পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীদের কম্পিউটার গ্রাফিক্স ও এনিমেশন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশিক্ষণ গ্রহনের পাশাপাশি০৯ টি বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ভাষা শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করবে।
  • বিদেশী ভাষা শিক্ষার ফলে ফ্রিল্যান্সিং এবং বৈদেশিক চাকুরীর ক্ষেত্র বৃদ্ধি পাবে।
  • দেশে বিদ্যমান ভাষা প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউটের ( ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ) ভাষা প্রশিক্ষকগণ নির্বাচিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের  ১০০০ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ প্রদান করবেন।
  • প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকগণ মাস্টার ট্রেইনার হিসেবে ছাত্র-ছাত্রী এবং অন্যান্য শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করবে।
  • কম্পিউটার ল্যাব সমৃদ্ধ প্রতিষ্ঠানের এসএসসি ও এইচএসসি উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীরা কম্পিউটার ব্যবহারের মাধ্যমে আয় বর্ধক কর্মকান্ডে নিজেদের সম্পৃক্ত করতে পারবে।
  • দেশব্যাপী পর্যাপ্ত পরিমানে কম্পিউটার জ্ঞান সম্পন্ন জনশক্তি তৈরি হবে।
  • ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং এর ক্ষেত্রে বর্তমানে বিদ্যমান ভাষাগত অদক্ষতাজনিত বাধাসমূহ কমে আসবে।
  • আন্তর্জাতিক ভাষায় পারদর্শী তরুণ-তরুণীরা ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং এর বাজারকে আরো সমৃদ্ধ করবে।
  • "জাতীয় আইসিটি নীতিমালা-২০০৯” সরকার কর্তৃক অনুমোদিত হয়েছে। এই প্রকল্পের অর্জন জাতীয় আইসিটি নীতিমালা-২০০৯ এর কৌশলগত বিষয়বস্তুর সাথে সরাসরি যোগসূত্র রয়েছে।

 

 

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা। 

মোবাইল: ০৬৭৫-০৬৭৪৮২

E-mail : makbabu39@yahoo.com